গঙ্গা বিলাসের বিরোধিতাকারীরা ভারতের সঙ্গে সম্পর্কোন্নয়ন চায় না: প্রতিমন্ত্রী

<![CDATA[

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেছেন, বিলাসবহুল পর্যটন জাহাজ ‘গঙ্গা বিলাস’ এর বাংলাদেশে আসার বিরোধিতাকারীরা প্রতিবেশী দেশ ভারতের সঙ্গে সম্পর্কের উন্নয়ন চায় না।

বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জেলা প্রশাসক (ডিসি) সম্মেলনের তৃতীয় ও শেষ দিনের দ্বিতীয় অধিবেশন শেষে নৌপ্রতিমন্ত্রী সাংবাদিকদের এ কথা জানান। প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয় ও নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে ডিসিদের এই কার্য-অধিবেশন হয়।

নৌপ্রতিমন্ত্রী বলেন, জেলা প্রশাসকদের কাছে আমাদের দুটি নির্দেশনা দেয়া আছে। কম উচ্চতার ব্রিজগুলো করতে যাতে বিআইডব্লিউটিএ’র অনুমোদন নেয়। ডিসিদের এ বিষয়ে তদারকি করতে বলা হয়েছে।

তিনি জানান, আরেকটি বিষয় হচ্ছে ভারত থেকে জাহাজ গঙ্গা বিলাস বাংলাদেশ হয়ে আসামে যাবে। আগামী তিন ফেব্রুয়ারি সেটি খুলনার কয়রা অতিক্রম করবে।

‘সেখানে কাস্টমস ইমিগ্রেশন সম্পন্ন করে ৫ ফেব্রুয়ারি আমরা তাদের মংলা বন্দরে স্বাগত জানাবো। তারা অনেকগুলো পর্যটন এলাকা, অনেকগুলো জেলা অতিক্রম করে ভারতে যাবে। জেলা প্রশাসকদের বলেছি এ বিষয়টি যাতে তারা নিবিড়ভাবে তদারকি করেন,’ যোগ করেন খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

আরও পড়ুন: বিশ্বের দীর্ঘতম নৌরুট পাড়ি দেবে ‘এমভি গঙ্গা বিলাস’

তিনি বলেন, কারণ, এটা আমাদের পর্যটনের ক্ষেত্রে বিরাট একটি সুযোগ। পাশাপাশি ভারত বাংলাদেশের সম্পর্ক অনন্য উচ্চতায় যাবে। এজন্য জেলা প্রশাসক ও বিভাগীয় কমিশনারদের অত্যন্ত আন্তরিকভাবে কাজ করতে বলেছি।

গঙ্গা বিলাস জাহাজ প্রকৃতির জন্য অনেক ক্ষতিকর হবে বলে পরিবেশবিদরা আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন- এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করলে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমরা যদি এ কথা ধরি তবে আদিম যুগে ফিরে যেতে হবে। সারা পৃথিবীতে নৌবাণিজ্যের মাধ্যমে অর্থনীতি….চট্টগ্রাম বন্দরকে আমরা আমাদের অর্থনীতির লাইফ লাইন বলি কেন? এই জাহাজ চলাচল আমদানি রফতানির কারণেই।

‘পর্যটন কীভাবে হবে! পর্যটন তো এভাবেই হয়। যারা এগুলো বলছে তারা বিদেশের সঙ্গে প্রতিবেশী রাষ্ট্রের সঙ্গে আমাদের সম্পর্কের উন্নয়ন যাতে না হয়, সম্পর্কের ঘাটতি হয়, এসব দৃষ্টিভঙ্গি নিয়ে বলে।’

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রীর মতে, তারা দেশের উন্নয়নের কথা বলছে না, এই চক্রটাই রামপালে পরিবেশের কথা বলে বাধা দিয়েছিল। আমরা যে মোংলা বন্দরের গভীরতা তৈরি করছি, সেখানে সাড়ে ৯ মিটার ড্রাফটের জাহাজ ভিড়বে, তারাই এর বিরোধিতা করছে।

আরও পড়ুন: মির্জা ফখরুলের বাবা কুখ্যাত রাজাকার ছিল: নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী

আপনাদের কি কোনো পরিবেশগত সমীক্ষা রয়েছে; প্রশ্নে খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, গঙ্গা বিলাস তো একটা জাহাজ আসতেছে। এ রকম শত শত হাজার হাজার জাহাজ এ পথে চলাচল করছে। কিন্তু কই আমাদের পরিবেশগত তো কোনো সমস্যা হয়নি। আমাদের জীববৈচিত্র্য তো নষ্ট হয়নি। গত ১৫ বছর আমরা অনেক ইলিশ মাছ খাচ্ছি। ১৫ বছর আগে ইলিশ মাছ ছিল না।

গত ১৩ জানুয়ারি ভারত থেকে যাত্রা শুরু করেছে প্রমোদতরি ‘এম ভি গঙ্গা বিলাস’। এটি বারানসি থেকে বাংলাদেশ হয়ে আসামের ডিব্রুগড় পর্যন্ত যাবে।

নৌপ্রতিমন্ত্রী বলেন, ঢাকার চারপাশ থেকে যখন নদীর অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করা হয়েছে। ৯০০ একর জমি আমরা উদ্ধার করেছি। তখন তারা কি বলেছে-বেসরকারি থেকে সরকারি দখলে যাচ্ছে। এই কথাগুলো আমাদের শুনতে হয়েছে। এই ধরনের দেশবিরোধী মানুষের কথা শুনলে দেশ আগাবে না।

জেলা প্রশাসকদের সঙ্গে অধিবেশনের বিষয়ে প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, উপকূলীয় অঞ্চলে যাতায়াতের চ্যালেঞ্জ আছে সেগুলো জেলা প্রশাসকরা বলেছেন। সেগুলো আমরা আমলে নিয়েছি। গত জেলা প্রশাসক সম্মেলনে তারা যে প্রস্তাবগুলো দিয়েছিলেন সেগুলো আমরা বাস্তবায়ন করেছি। আজকে তারা যে প্রস্তাবনা দিয়েছেন সেগুলো আমরা ভবিষ্যতে বাস্তবায়ন করব।

]]>

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button