পর্তুগালে আবাসন সংকটে প্রবাসী বাংলাদেশিরা

<![CDATA[

শুধু বড় শহরই নয়, পর্তুগালের ছোট শহরগুলোতেও আবাসন সংকটে প্রবাসী বাংলাদেশিরা। কাজের সুযোগ থাকলেও থাকার জায়গার অভাবে ওই শহরগুলোতে যেতে পারছেন না তারা। পরিবার নিয়েও বিপাকে অনেক বাংলাদেশি।

গত কয়েক বছরে লিসবনের বাইরে পর্তুগালের যেসব শহরে প্রবাসী বাংলাদেশিদের বসবাস বেড়েছে, তার মধ্যে অন্যতম ৭৬ দশমিক চার আট বর্গকিলোমিটার আয়োতনের ছোট শহর ভিলা নোভা দ্যা মিলফনতেস। বসতি বাড়ায় বাংলাদেশিরা গড়ে তুলেছেন বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠানও।

এ ছাড়া কৃষিখাতে যুক্ত প্রবাসী বাংলাদেশিদের একটি বড় অংশ কাজ করেন এ শহরের বিভিন্ন ফার্মে। শীত মৌসুমে কিছুটা কম থাকলেও গ্রীষ্মে সুযোগ রয়েছে বিপুল কর্মসংস্থানের। ছোট এ শহরে কাজের সুযোগ থাকলেও বেশ কয়েক বছর ধরেই আবাসন সংকটে প্রবাসীরা।

একজন প্রবাসী বাংলাদেশি বলেন, লিসবনে কাজের অনেক সুযোগ রয়েছে। কিন্তু আবাসন সংকট এখানে প্রকট। যার কারণে এখানে আমাদের কর্মসংস্থান হচ্ছে না। আরেকজন বলেন, আমরা এখানে কাজ করলেও পরিবার নিয়ে থাকতে পারছি না।

আরও পড়ুন: পর্তুগালের পার্লামেন্টে ‘স্বেচ্ছামৃত্যু’র বিল

মিলফনতেসের মতো এলাকায় আবাসন খাতে বিনিয়োগ করেও লাভবান হওয়ার সুযোগ আছে বলে জানান ব্যবসায়ীরা।

প্রবাসী ব্যবসায়ী ফারুক শিকদার বলেন, ‘অনেক বড় বড় বিনিয়োগকারী আছেন। আমি তাদের বলব, আপনারা এখানে আবাসন তৈরি করেন; সুযোগ-সুবিধা তৈরি করেন ফলে এখানে বহু মানুষ কাজের সুযোগ পাবে।এখানে প্রচুর কাজের সুযোগ আছে।’

আরও পড়ুন: পেছনের দরজা দিয়ে পালালেন পর্তুগালের অর্থমন্ত্রী

কৃষি মৌসুমে প্রায় ১ হাজার প্রবাসী বাংলাদেশির কর্মসংস্থান হয় মিলফনতেসের বিভিন্ন কৃষি খামারে। নিয়মিতভাবে শহরটিতে বসবাস করছেন কয়েকশ বাংলাদেশি ও তাদের পরিবার।

]]>

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button