নতুন চুক্তিতে সাকিব-তামিমরা যেমন বেতন পাবেন

<![CDATA[

বিসিবির নতুন কেন্দ্রীয় চুক্তিতে বেতন বাড়ছে সাকিব আল হাসানের। প্রতিমাসে বোর্ড থেকে তার অ্যাকাউন্টে যোগ হবে ৭ লাখ ৯০ হাজার টাকা। তবে টি-টোয়েন্টির চুক্তিতে না থাকায় বেতন কমেছে মুশফিকের।

অভিজ্ঞতা আর পারফরম্যান্স বিবেচনায় ক্রিকেটারদের ভাগ করা হয়েছে ৪টি ক্যাটাগরিতে। প্রমোশন হয়েছে প্রথমবারের মতো তিন ফরম্যাটে জায়গা পাওয়া মেহেদী হাসান মিরাজের। এছাড়া বেতন ও সংখ্যা বাড়ছে প্রথম শ্রেণি ক্রিকেটারদেরও।

অপেক্ষার ইতি টেনে গত শনিবার ২১ ক্রিকেটারকে রেখে বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তির তালিকা প্রকাশ করে বিসিবি। এরপর থেকেই আলোচনা পায় ভিন্ন মাত্রা। কারা থাকছেন কোন ক্যাটাগরিতে কিংবা কার বেতন হচ্ছে কত?

 

অভিজ্ঞতা আর পারফরম্যান্স বিচারে এবার ক্রিকেটারদের ভাগ করা হয়েছে এ+, এ, বি, সি এই ৪ কাটাগরিতে। নতুন বছর ক্রিকেটারদের বেতন বাড়েনি তবে গ্রেডিং ও ফরম‌্যাটের কারণে কারও বেতন কমেছে, কারও বেড়েছে।

আরও পড়ুন:বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে বাদ পড়েছেন যারা

টেস্টে এ প্লাস গ্রেডের বেতন সাড়ে ৪ লাখ টাকা, ওয়ানডেতে ৪ লাখ আর টি-টোয়েন্টিতে সংখ্যাটা আড়াই লাখ টাকা। টেস্টে এ’ গ্রেডের ক্রিকেটাররা পাবেন ৪ লাখ, ওয়ানডেতে ১ লাখ ৫০ হাজার আর টি-টোয়েন্টিতে ৮০ হাজার টাকা। সি গ্রেডে থাকা ক্রিকেটাররা পাবেন ১ লাখ টাকা করে।

এবার নজর দেয়া যাক কে কোন ক্যাটাগরিতে আছেন। সাকিব, তামিম মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ এই চার সিনিয়র ক্যাম্পেইনার আছেন এ+ ক্যাটাগরিতে। লিটন, তাসকিন ও মেহেদী মিরাজের সঙ্গে এ’ ক্যাটাগরিতে আছেন আফিফ আর মোস্তাফিজ। শুধু টেস্টের চুক্তিতে থাকা মুমিনুল হকও আছন এ ক্যাটাগরিতে। বাকিরা বি ক্যাটাগরিতে। তবে সি ক্যাটাগরিতে আছেন হাসান মাহমুদ আর প্রথমবারের মতো বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তিতে জায়গা পাওয়া অভিষেক টেস্টে সেঞ্চুরিয়ান জাকির হাসান।

তবে তিন ফরম্যাটের ‘এ’ প্লাস ক্যাটাগরিতে থাকলেই যে পুরো টাকা পাবেন বিষয়ট এমন নয়। সাকিব আল হাসানকে দিয়েই উদাহারণ দেয়া যাক। এ+ ক্যাটাগরিতে থাকায় টেস্টের পুরো সাড়ে চার লাখ টাকা পেলেও ওয়ানডেতে তার অ্যাকাউন্টে ঢুকবে ৫০ শতাংশ অর্থাৎ ২ লাখ আর টি-টোয়েন্টিতে ৪০ শতাংশ অথাৎ ১ লাখ টাকা। সব মিলিয়ে সাকিবে মাসিক বেতন হবে ৭ লাখ ৫০ হাজার টাকা। সঙ্গে দুই ফরম‌্যাটে অধিনায়ক ভাতা হিসেবে যোগ হবে অতিরিক্ত ৪০ হাজার টাকা।

আরও পড়ুন:চমক রেখে বিসিবির কেন্দ্রীয় চুক্তি প্রকাশ

টেস্ট ও টেস্ট ও ওয়ানডে ফরম্যাটে খেলা তামিমের অধিনায়ক ভাতা ২০ হাজার টাকাসহ সব মিলিয়ে তার মাসিক বেতন হবে ৬ লাখ ৭০ হাজার টাকা। মুশফিক তুলবেন প্রায় ৬ লাখ ৫০ হাজার টাকা আর রিয়াদ ৪ লাখ টাকা। একইভাবে তিন ফরম্যাটে থাকা মিরাজ, তাসকিন, লিটনের মাসিক অ্যাকাউন্টে যোগ হবে ৫ লাখ ৭ হাজার টাকা। মুমিনুল পাবেন ৪ লাখ টাকা।

এছাড়া এই চুক্তির বাইরে থাকা কোনো ক্রিকেটার যদি জাতীয় দলের হয়ে একটা ম্যাচ খেলেন তবে তাদের পূর্বের ক্যাটাগরি অনুযায়ী ওই মাসের বেতন দেয়া হবে। এ বছরের ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত চুক্তিতে থাকা এই ক্রিকেটারদের বেতন তাদের অ্যাকাউন্টে পাঠিয়ে দেবে বিসিবি।

]]>

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button