তুরস্কের আকাশে অদ্ভুত রঙিন মেঘ

<![CDATA[

তুরস্কের আকাশে দেখা মিলল অদ্ভূত রঙিন মেঘের। লাল-কমলা রঙের মেঘ দেখে বোঝা মুশকিল আদৌ মেঘ নাকি অন্য কিছু। দেশটির আবহাওয়া দফতর জানায়, পাহাড়ের ওপর প্রবল বাতাসের কারণেই তৈরি হয় এমন মেঘ। শুক্রবার (২০ জানুয়ারি) ডেইলি মেইলের খবরে এ তথ্য উঠে আসে।

প্রথম দেখায় মনে হতে পারে এ আবার কি? রং তুলির রঙিন আঁচড়ও মনে হতে পারে। লাল-কমলা-হলুদ রঙ মেশানো অদ্ভূত এ দৃশ্য ভাবনায় ফেলবে যে কাউকে। পরাবাস্তবও মনে হতে পারে অনেকের কাছে। এমনই একটি অদ্ভূত দৃশ্য সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

মূলত এটি মেঘের ছবি। মেঘ সাদা-ছাই-কালো রঙের দেখা গেলেও এমন রঙিন মেঘের নজির নেই। লাল-কমলা মেঘের এ ছবি অবিশ্বাস্য হলেও বাস্তব। রঙিন মেঘ দেখে বোঝার উপায় নেই এটি আদৌ মেঘ নাকি অন্য কিছু। তুরস্কের বার্সা শহরের আকাশে দেখা গেছে এমন অদ্ভূত মেঘ, যা দেখে হতবাক স্থানীয়রা। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান এমন অদ্ভূত মেঘ তারা কখনো দেখেননি।

অদ্ভুত রঙিন মেঘের ভিডিও এবং ছবি বিশ্বজুড়ে ভাইরাল হয়েছে। শত শত সামাজিক মাধ্যম ব্যবহারকারী বলেছেন যে মেঘটি দেখতে ইউএফওর মতো। তবে তুরস্কের স্টেট মেটিওরোলজিক্যাল সার্ভিস বলছে, বিরল ঘটনাটি কেবল একটি ‘লেন্টিকুলার ক্লাউড’। এ ধরনের মেঘগুলো তাদের বাঁকা ও ফানেল আকৃতির চেহারার জন্য পরিচিত।

আরও পড়ুন: বড় তেলের খনি আবিষ্কার তুরস্কের

এ ধরনের মেঘ সাধারণত ২০০০ থেকে ৫০০০ মিটারের মধ্যে উচ্চতায় পাওয়া যায়। লেন্টিকুলার মেঘ তৈরি হয় যখন বায়ুমণ্ডলের স্তরটি স্যাচুরেশনের ঠিক ওপরে থাকে, যার অর্থ তারা পাহাড় এবং পর্বতের ওপর প্রবল বাতাসের ওঠানামার ফলে তৈরি হয় যখন বাতাস স্থিতিশীল এবং আর্দ্র থাকে। তারা প্রায়শই শীতকালে গঠন করে, তবে বছরের অন্য সময়ে তাদের দেখা সম্ভব।

দেশটির আবহাওয়া দফতর স্থানীয় গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, ঘন মেঘের ওপর সূর্যরশ্মি পড়ায় এমন লাল-কমলা-হলুদ রঙ ধারণ করে মেঘ। এটি লেন্স মেঘের একটি উদাহরণ যা সাধারণত পাহাড়ের ওপর প্রবল বাতাসের ওঠানামার কারণে তৈরি হয় বলেও জানানো হয়। রঙিন মেঘের এ বলয়ের স্থায়িত্ব ছিল অন্তত একঘণ্টা।

আরও পড়ুন: রফতানি আয়ে তুরস্কের রেকর্ড

]]>

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button