যশোরে তিনদিনের ফুল উৎসব শুরু

<![CDATA[

ফুলের রাজধানী খ্যাত যশোরের গদখালীতে তিনদিনের ফুল উৎসব শুরু হয়েছে। ফুলের বাণিজ্যিক সম্প্রসারণ বেগবান ও ফুলের রাজ্যকে সবার সামনে তুলে ধরার লক্ষ্যে এ ফুল মেলার আয়োজন করা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) বিকেলে মেলার উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান।

ঝিকরগাছা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজিত উদ্বোধন অনুষ্ঠানে জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান বলেন, বাংলাদেশের সবচেয়ে সুন্দর গ্রাম যশোরের গদখালী। এই গ্রামের নাম জানেন না এমন কেউ নেই। এখানকার ফুলের সুভাস শুধু সমৃদ্ধি ছড়াচ্ছে না; দেশের অর্থনৈতিক সমৃদ্ধির সোপানও বৃদ্ধি করেছে। ফুলকেন্দ্রীক পর্যটন শিল্পের বিকাশে এই উৎসব কাজে আসবে।

বিভিন্ন সময়ে ফুল উৎপাদন-সম্প্রসারণে ভূমিকা রাখা ১০ ফুল চাষি ও ব্যবসায়ীকে সম্মাননা স্মারক দিয়েছেন জেলা প্রশাসক তমিজুল ইসলাম খান।

আরও পড়ুন: পশ্চিমবঙ্গের বারাসাতে বইমেলার উদ্বোধন

অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন স্থানীয় সরকারের যশোরের উপপরিচালক হুসাইন শওকত, জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের উপপরিচালক মঞ্জুরুল হক, উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মনিরুল ইসলাম, বাংলাদেশ ফুল ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুর রহিম, নারী ফুলচাষী সাজেদা বেগম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন ঝিকরগাছা উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুবুল হক।

এদিকে ফুল উৎসবকে কেন্দ্র করে উৎসবে মেতেছেন এ অঞ্চলের ফুল চাষি ও সংশ্লিষ্টরা। ফুল ক্ষেতকে নবরূপে সাজানো হয়েছে। প্রতিটি ফুল সেডকে এক একটি স্টলে রূপান্তরিত করা হয়েছে। গদখালির পানিসারা হাড়িয়া ফুল মোড়ের ক্ষেতগুলো দৃষ্টিনন্দন করা হয়েছে। এ মোড়ে অবস্থিত রেস্টুরেন্টেগুলোকেও ফুল ক্ষেতের আদলে রূপ দেয়া হয়েছে।

ইসমাইল হোসেন নামে এক ফুল চাষি জানান, ফুল উৎসবকে কেন্দ্র করে নতুন করে সেজেছে গদখালী-পানিসারা এলাকা। ফুল উৎসবকে কেন্দ্র করে নতুন করে প্রতিটি ঘরে ঘরে উৎসবে মেতেছে। 

সাজেদা নামে এক ফুল চাষি  বলেন, এই মেলা আমাদের ফুল চাষিদের মিলন মেলায় পরিণত করেছে। আমরা চাই প্রতিবছর এই মেলা আয়োজন করুক প্রশাসন। 

আরও পড়ুন: ৭ কেজি ওজনের ফুল ‘র‍্যাফলেশিয়া’

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাহবুবুল হক বলেন, নানান রঙের ফুলের মেলা, খেজুর গুড়ের যশোর জেলা। এমন স্লোগানে যশোর জেলাকে ব্র্যান্ডি করেছে সরকার। যশোরের ফুল, এই জেলার  ঐতিহ্য সুদীর্ঘকালের। বৃহস্পতিবার যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আয়োজন করা হয়েছে তিনদিনের ফুল উৎসব। ফুল চাষি, ব্যবসায়ী দর্শনার্থীদের মাঝে ব্যাপক সাড়া ফেলেছে। এই মেলার শেষ হবে আগামী শনিবার।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, দেশে ফুলের বিশাল এই বাণিজ্যও শুরু হয়েছিল জেলার ঝিকরগাছা উপজেলার গদখালী-পানিসারাতে।

১৯৮২ সালের দিকে শের আলি সরদার রজনীগন্ধা ফুল চাষের মাধ্যমে এখানে ফুল চাষ শুরু করেন। যশোরে প্রায় ৬ হাজার ফুল চাষি এক হাজার ৫০০ হেক্টর জমিতে বাণিজ্যিকভাবে উৎপাদন করছেন রজনীগন্ধা, গোলাপ, জারবেরা, গাঁদা, গ্লাডিউলাস, জিপসি, রডস্টিক, কেলেনডোলা, চন্দ্রমল্লিকাসহ ১১ ধরনের ফুল। 

দেশের মোট চাহিদার ৭০ ভাগের বেশি যশোরের গদখালী থেকে সরবরাহ করা হয়। দেশের গণ্ডি পেরিয়ে ফুল এখন যাচ্ছে সংযুক্ত আরব আমিরাত, মালয়েশিয়া, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়াতেও। প্রথম দিকে বছরের নির্দিষ্ট কয়েক মাসে ফুল চাষ হলেও এখন প্রায় সারা বছরই ফুল চাষ হয়ে থাকে।

]]>

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button