যে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোর দিকে লক্ষ্য রাখলে আপনার স্মার্টফোন কেউ কোনোদিন হ্যাক করতে পারবে না।


  • আসসালামুআলাইকুম

সবাই কেমন আছেন? আশা করি সবাই অনেক ভাল আছেন। Trickbd এর সাথে সবাই নিয়মিত থাকবেন,যাতে সকল প্রকার আপডেট পেতে পারেন।

হ্যাক! এই বিষয়টা আসলে অনেকের সাথে ঘটে, এবং এখনো ঘটে চলছে। আমাদের অসতর্কতার কারনে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হ্যাক হয়ে যায়। অনেকে জানে না যে আমাদের কোন দিকে লক্ষ্য রাখাটা জরুরি। আমাদের ভুলের কারনে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হ্যাকারেরা হ্যাক করে নিয়ে যায়। আজকে আপনাদের জানাব,যে যে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোর দিকে লক্ষ্য রাখলে আপনার স্মার্টফোন কেউ কোনোদিন হ্যাক করতে পারবে না। 

আশা করি সম্পন্ন আর্টিক্যালটি মনোযোগ সহকারে পড়বেন।  

হ্যাকাররা তাদের ফাদ পেতে বসে থাকে, হ্যাক করার জন্য। কিন্তু আমাদের সাবধান থাকতে হবে সব সময়।আমরা কখনো এমন ভুল করব না যাতে আমাদের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য হ্যাকার হ্যাক করতে পারে।  

আমাদের ফোনটি কখনো অপরিচিত কারোর হাতে দিব না। যদি কেউ কথা বলার জন্য আপনার ফোনটি নেয় তাহলে আপনি সব সময় খেয়াল রাখবেন সে ফোনে কি করছে। কারন অনেক সময় হ্যাকার আপনার ফোনের তথ্য হ্যাক করার জন্য ফাদ পেতে থাকে, কথা বলার জন্য আপনার ফোন নিয়ে তথ্য হ্যাক করার চেস্টা করে।কিংবা ওটিপি কোড নেয়ার চেস্টা করে।তাই আমাদের এই বিষয়ে খেয়াল রাখতে হবে।

অনেক সময় আমাদের ফোনে মেসেজ দেয় যে আপনাকে উপবৃত্তি দেয়া হচ্ছে এবং আপনাকে মেসেজ দেয়ার পর হ্যাকার আপনাকে ফোন দেয়, এবং সুন্দরভাবে বুঝিয়ে আপনাকে বলে আপনার বিকাশ, নগদ, রকেট নাম্বার এটাই। আপনি বলেন হ্যা এটাই, তারপর আপনাকে বলে আপনার নাম্বারে ওটিপি যাবে এটা আমাদের দিন,এবং পিন দিন। আপনি কি করেন সাথে সাথে দিয়ে দেন। এবং তারা আপনার মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট তাদের ফোনে লগ ইন দিয়ে নিয়ে নেয়। এবং আপনার লেনদেন দেখেন। যখন মোটা অঙ্কের টাকা আপনার একাউন্ট র ঢোকে তখন তারা হ্যাক করে নিয়ে নেয়৷ তাই আমাদের এই বিষয়ে সজাক হতে হবে।

 অনেক সময় হ্যাকার আমাদের লিংক দেয়, বলে এই লিংকে ক্লিক করলে আপনি ১০ হাজার টাকা বা ২০ জিবি ইন্টারনেট ফ্রি পাবেন৷ আমরা সেই লিংকে ক্লিক দিয়ে দিই। এবং প্রয়োজনীয় তথ্য দিয়ে সাবমিট দিয়ে দিই , আপনি টাকা,এম্বি তো পাবেন ই না বরং আপনার তথ্য হ্যাক করে নিবে হ্যাকাররা। অনেক সময় এরকম ফিসিং সাইটের মাধ্যমে ফেসবুক,জিমেইল একাউন্ট হ্যাক করে থাকে হ্যাকাররা। এবং আপনাকে ব্লাকমেইল করে অনেক টাকা দাবি করে থাকে। টাকা না দিলে আপনার ব্যাক্তিগত তথ্য দিয়ে অনেক কিছু করতে চায় তারা। আমাদের সব সময় সাবধান হতে হবে।

অনেকে আবার আমাদের বলে আপনার সিমে ওটিপি গেছে, প্রতি ওটিপি ৫০ টাকা সেল করুন। এরকম অফারে কখনো কান দিবেন না। কারন এতে আপনার সিমের সকল তথ্য হ্যাকারদের দখলে নেয়ার চেস্টা চালায়। আপনি কখনো ভুলে এমন কাজ করবেন না। হ্যাকাররা ফাদ পেতে বসে থাকে, আজকের পর থেকে এমন কাজ কখনো করবেন না।

আমাদের অনেকের ইউটিউব চ্যানেল জিমেইলে খোলা আছে। অনেক সময় দেখা যায়, আমাদের জিমেইলে মেইল পাঠানো হয়, এবং বলা হয় ফর্মটি সাবমিট করলে আপনাকে ২০০-৩০০$ দেয়া হবে। আপনি ভুলেও এমন তথ্যতে পা বাড়াবেন না। কারন আপনি ভুয়া লিংকে ক্লিক করলে আপনার জিমেইল এবং ইউটিউব চ্যানেল হ্যাক হবার সম্ভাবনা থাকে অনেক বেশি।

আপনি যদি সাবধান হয়ে যান,তাহলে হ্যাকার যত চেস্টা করুক আপনার তথ্য কখনো হ্যাক করতে পারবে না। এটি সব সময় মাথায় রাখবেন। 

একটি কথা সব সময় খেয়াল রাখবেন মোবাইল ব্যাংকিং কোম্পনি কখনো পিন বা ওটিপি আপনার থেকে চাইবে না।যখন এসব চাইবে আপনি নিশ্চিত বুঝবেন এটা হ্যাকার।

অনেক সময় আমাদের ফোনে হঠাৎ ফোন দিয়ে বলে আপনার মোবাইল ব্যাংকিং একাউন্ট কি চালু রাখবেন? আমরা কাস্টমার কেয়ার থেকে বলছি। আপনি তো বলেন হ্যা চালু রাখব। তখন সুন্দরভাবে বলে তাহলে আমাদের কিছু তথ্য দিয়ে সহায়তা করুন। আপনার মোবাইলে পাঠানো কোড টি ৩০ সেকেন্ড এর মধ্য দিন। এবং আপনার পিন দিন। আপনারা দিয়ে দেন এই ত হ্যাক হয়ে গেল আপনার একাউন্ট টি। মনে রাখতে হবে কখনো এমন কাজ করা উচিৎ নয়। আপনার পিন এবং ওটিপি কাউকে দিবেন না কখনো।

আরেকটা দিক লক্ষ্য রাখতে হবে, আমাদের একাউন্ট বা যেকোন কিছুর পাসওয়ার্ড অনেক বেশি শক্তিশালী দিতে হবে। একদম সহজ পাসওয়ার্ড দেয়া যাবে না কখনো। আমরা আমাদের একাউন্ট এর পাসওয়ার্ড একদম সহজ দিয়ে দিই। কয়েকদিন আগে আমাকে এক ভাই এসে বল্লো জিমেইল হ্যাক করেছি ২০-৩০ টার মতো। আমি শুনে অবাক, যে কিভাবে। 

সে বল্লো অনেকবার চেস্টা করে,  বল্লো নাম্বার এবং পাসওয়ার্ড এক দিয়েছে অনেকে।বার বার নাম্বার পাসওয়ার্ড এক দিয়ে চেস্টা করলে ২-১ টা করে লগ ইন হয়। তাহলে দেখুন, সহজ পাসওয়ার্ড কখনো ব্যাবহার করবেন না।

আশা করি একটু হলেও ধারনা পেয়ে গেছেন, এগুলো বিষয় খেয়াল রাখলে কখনো আপনার স্মার্টফোন বা কোনো একাউন্ট হ্যাক করতে পারবে না হ্যাকার।

আজকে এপযন্ত, আবারো দেখা হবে নতুন কোনো আপডেট নিয়ে।

ভুল হলে ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন।

যেকোন প্রয়োজনে,

ফেসবুকে আমিঃ-

ধন্যবাদ। 





Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button